ঝালকাঠি: ঝালকাঠির রাজাপুর উপজেলায় জমিজমা নিয়ে বিরোধের জের ধরে মোসা. মনিকা আক্তার (১৮) নামে এক স্কুলছাত্রীকে মারধর করে তার চুল কেটে নিয়েছে প্রতিপক্ষ।

এ সময় বাধা দিতে গেল তার বাবা মো. জামাল মীরকে পিটিয়ে তার হাত ভেঙে দেয় প্রতিপক্ষের লোকজন।

মঙ্গলবার (২৮ এপ্রিল) বেলা ১১টার দিকে নিজ গালুয়া গ্রামে ঘটনা ঘটে।

মনিকা আক্তার স্থানীয় গালুয়া মাতৃকল্যাণ বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ছাত্রী। তাকে ও তার বাবাকে রাজাপুর স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ভর্তি করা হয়েছে।

স্বাস্থ্য কেন্দ্রে চিকিৎসাধীন মনিকা আক্তার ও তার বাবা জামাল মীর অভিযোগ করেন, জমি নিয়ে প্রতিবেশী মদি মীরের সঙ্গে তার বিরোধ ছিল। ওই বিরোধের জের ধরে সকালে মদি মীরের ছেলে ফরিদ মীর ও ফিরোজ মীর লোকজন নিয়ে তার বাড়িতে প্রবেশ করে।

এ সময় তারা ঘরে প্রবেশ করে মনিকার ওপর হামলা করে তাকে মারধর করে। একপর্যায়ে ফরিদ মীর ও ফিরোজ মীর মনিকাকে আটকে রাখলে তাদের দুই ভাইয়ের স্ত্রী ও  বাড়ির মেয়েরা মিলে মনিকার মাথার চুল কেটে নেয় এবং শরীরের বিভিন্ন স্থানে কাঁচি দিয়ে জখম করে।

এদিকে, হামলাকারীদের বাধা দিতে গেলে মনিকার বাবা জামাল মীরকে বেদম মারধর করা হয়। এতে তার ডান হাত ভেঙে যায়।

রাজাপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) হারুন অর রশিদ বাংলানিউজকে বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, স্বাস্থ্য কেন্দ্রে পুলিশ পাঠানো হচ্ছে। এ ঘটনায় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

print