হাসিবুল হাসান : পিরোজপুর সদর উপজেলার সিকদার মল্লিক ইউনিয়নের দক্ষিণ গাবতলা গ্রামে সোমবার গভীর রাতে একদল সশস্ত্র ডাকাত এক গৃহকর্তা ও তার মেয়েকে কুপিয়ে জখম করেছে। আর মারপিট করে আহত করেছে গৃহকর্তার স্ত্রী ও ছেলেকে। গুরুতর আহত গৃহকর্তা নারায়ন চন্দ্র সিংহকে পিরোজপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। অন্যদেরকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। নারায়ন চন্দ্র এর প্রতিবেশী মৃনাল কান্তি বলেন, রাত আড়াইটার দিকে একদল সশস্ত্র ডাকাত নারায়ন চন্দ্রের বাড়ির সামনে থেকে সিঁধকেটে ঘরে ঢুকে অস্ত্রের মুখে সবাইকে জিম্মিকরে ঘরে থাকা ২০ হাজার টাকা ও অন্যান্য মালামাল নিয়ে যায়। এ সময় ডাকাত দল গৃহকর্তা নারায়ন সিংহ ও তার মেয়ে শ্রাবণীকে কুপিয়ে মারাত্বক জখম করে, আর মারাপিট করে আহত করে স্ত্রী যুথিকা রানী ও ছেলে পিরোজপুর সরকারি সোহরাওয়ার্দী কলেজের ছাত্র সমর সিংহকে। মৃনালকান্তী বলেন, ডাকাতরা চলে যাবার পর সমর সিংহ ও তার স্বজনদের চিৎকারে আমরা এগিয়ে এসে তাদেরকে উদ্ধার করে পিরোজপুর সদর হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করি। পিরোজপুরের পুলিশ সুপার মোঃ ওয়ালিদ হোসেন সহ পুলিশ কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। এদিকে ডাকাতির ১২ ঘন্টার মধ্যে পাঁচপাড়া পুলিশ ক্যাম্পের এস আই মনিরুজ্জামান নেতৃত্বে সঙ্গীয় ফোর্স মঙ্গলবার দুপুরে সিকদার মল্লিক এলাকা থেকে ডাকাতির ঘটনার সাথে জড়িত মো: মামুন নামে এক ডাকাতকে গ্রেফতার করেছে। পিরোজপুর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো: এনায়েত হোসেন বলেন, অন্য ডাকাতদের গ্রেফতারের জন্য জোর অভিযান চলছে।

print