লাইসেন্সবিহীন, চোরাই বা অবৈধ মোটর চালিত যানবাহন জব্দ করার পর বছরের পর বছর পরে থাকে ডাম্পিং স্টেশনে। এসব মোটরযান আর ডাম্পিং স্টেশনে ফেলে না রেখে এবার ব্যবহারের উদ্যেগ নিতে যাচ্ছে আইন শৃঙ্খলাবাহিনী।

জাতীয় সংসদে বুধবার অনুষ্ঠিত স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠকে এ উদ্যোগের কথা জানানো হয়।

কমিটি সূত্র জানায়, বৈঠকে পুলিশের হাতে জব্দকৃত মোটরযান ব্যবহার বিষয়ে আলোচনাকালে পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়, রাজধানীসহ দেশের প্রতিটি থানায় পুলিশের যানবাহনের চাহিদা রয়েছে। অথচ জব্দকৃত অনেক মোটরযান বছরের পর বছর ডাম্পিং স্টেশনে পড়ে থেকে নষ্ট হয়ে গেলেও আইন না থাকায় পুলিশ এগুলো ব্যবহার করতে পারছে না। এসব যানবাহন ব্যবহারের সুযোগ মিললে অপরাধ দমন পুলিশের পক্ষে অনেকটা সহজ হবে বলে মনে করেন তারা।

এ সময় মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে পুলিশের এ দাবি পূরণে নেয়া উদ্যোগের কথা জানানো হয়। জানানো হয়, জব্দকৃত মোটরযান ডাম্পিংয়ে নষ্ট না করে রাষ্ট্রীয় কাজে কীভাবে ব্যবহার করা যায় তা ঠিক করতে আইন মন্ত্রণালয়কে একটি চিঠি দেবে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। কিভাবে জব্দকৃত যানবাহন ব্যবহার করা যায় তার আইনী ব্যাখা চেয়ে এ চিঠি দেয়া হবে।

এ বিষয়ে কমিটির সভাপতি টিপু মুন্সি সাংবাদিকদের জানান, আমরা একটা নির্দিষ্ট সময় বেঁধে দিতে চাই। সেটা এক বছর বা দুই বছর যাই হোক। কোন যানবাহন জব্দ করার পর সেই সময় পার হলে তার মালিকানা হবে রাষ্ট্র। এসব যানবাহন নষ্ট না করে রাষ্ট্রীয় কাজে ব্যবহার করা হবে।

কমিটির সভাপতি টিপু মুন্সির সভাপতিত্বে বৈঠকে কমিটির সদস্য স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল, অ্যাডভোকেট শামসুল হক টুকু, ওমর ফারুক চৌধুরী, আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন, ফখরুল ইমাম ও কামরুন নাহার চৌধুরী অংশ নেন। পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি), স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিবসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন।

print