নাজিরপুর প্রতিনিধি : পিরোজপুর-১ আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামলীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব একেএমএ আউয়াল বলেছেন, বঙ্গবন্ধু ছিলেন মহা সমুদ্রের মত একজন মহান নেতা। বঙ্গবন্ধু শুধু বাঙালি জাতির নয় বিশ্বের নিপড়ীত নির্যাতিত মানুষের বন্ধু ছিল। তিনি ধর্ম বর্ণের বৈষম্যের রাজনীতি বিশ্বাস করতে না। বঙ্গবন্ধুর মৃত্যুকে মেনে নিয়েও পাকিস্তানিদের কাছে আত্মসমর্পন করেননি। ৭ই মার্চের ভাষণে বঙ্গবন্ধু স্বাধীনতার মূলমন্ত্র ঘোষণা করেছিলেন। ৭ই মার্চের ভাষণ কোন সাধারণ ভাষণ ছিল না। ছিল বাঙ্গালি জাতির মুক্তির ভাষণ। বঙ্গবন্ধু তার ৭ই মার্চের দেয়া ভাষণে যা বলেছিলেন তা বিশ্বের ইতিহাসে স্মরণীয় থাকবে। টুঙ্গিপাড়ার অজপাড়াগায়ে জন্ম নেয়া খোকা আজ আমাদের জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। সে দিন সেই অজপাড়া গায়ের একজন মা যোগ্য সন্তান জন্ম দিয়েছিলেন বলেই আমরা আজ স্বাধীন বাঙালি জাতি হিসাবে পরিচয় লাভ করেছি। যে মহান নেতার ভাষণে উজ্জীবিত হয়ে বাঙ্গালি জাতি মুক্তিযুদ্ধে ঝাপিয়ে পরেছিল সে মহান নেতাকে ১৫ আগস্ট কালো রাতে কুচক্রিমহল হত্যা করেছে। স্বাধীনতার ইতিহাস সম্পর্কে জানতে প্রত্যেক অভিভাবদের সচেতন হতে হবে। আমরা সবাই আমাদের সন্তানদের স্বাধীনতার ইতিহাস সম্পর্কে ধারনা দিব। ওরা সে দিন আমার বাঙালি মা বোনদের সম্ভ্রম লুট করেছিল। আর বেগম খালেদা জিয়া ১৫ আগস্ট ভূয়া জন্ম দিন পালন করছে। জিয়াউর রহমানের জীবদ্দশায় সে কখনো নিজেকে স্বাধীনতার ঘোষক বলে দাবী করে নাই। জিয়ার মৃত্যুর পরে বেগম খালেদা জিয়া তাকে স্বাধীনতার ঘোষক বলেছেন। যে জয়বাংলা শ্লোগানের বিনিময় আমরা পাকিস্তানি হানাদারদের পরাজিত করে বাংলাদেশ স্বাধীন করেছি সে জয়বাংলা শ্লোগান আমাদের বুকে ধারন করতে হবে। চক্রান্তকারীরা সে দিন নীলনকশা করে বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করেছিল। বাঙালির স্বাধীনতার জন্য শ্রীমতি ইন্দ্রিরা গান্ধী সর্বোচ্চ ভূমিকা রেখেছিলেন। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪০ তম শাহাদাৎ বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে নাজিরপুর উপজেলার শ্রীরামকাঠী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ আয়োজিত আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। শ্রীরামকাঠী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি আলতাফ হোসেন বেপারীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন, বিশেষ অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন, নাজিরপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আব্দুল মালেক বেপারী। আলোচনা সভায় প্রধান আলোচক হিসাবে আলোচনা করেন শ্রী কুমার আচার্য্য। বক্তব্য রাখেন, জেলা আওয়ামীলীগের সদস্য কানাই লাল বিশ্বাস, জেলা ইমাম সমিতির সভাপতি মাওলানা ফারুক আব্দুল্লাহ, নাজিরপুর উপজেলা যুবলীগের সভাপতি খোকন কাজী, সাধারণ সম্পাদক চঞ্চল কান্তি বিশ্বাস, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি হাসান আম্মান লিটন, জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক খায়রুল ইসলাম মিঠু, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি তানভীর হাসান ডালিম, সাধারণ সম্পাদক সুমন হাওলাদার প্রমুখ।

print