স্টাফ রিপোর্টার : পিরোজপুরে মা-শিশু-কৈশোরকালীন স্বাস্থ্য সেবা ও প্রচার সপ্তাহ পালন উপলক্ষে বৃহস্পতিবার জেলা পরিবার পরিকল্পনা কার্যালয়ের মিলনায়তনে অ্যাডভোকেসী সভা ও প্রেস ব্রিফিং এর আয়োজন করা হয়। পরিবার পরিকল্পনার উপ-পরিচালক রামকৃষ্ণ দাস এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত অ্যাডভোকেসী সভা ও প্রেস ব্রিফিং এ প্রধান অতিথি ছিলেন পিরোজপুরের জেলা প্রশাসক একেএম শামিমুল হক ছিদ্দিকী। সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সিভিল সার্জন কার্যালয়ের মেডিকেল অফিসার ডা: আল-ফয়সাল, পিরোজপুর সদরের উপজেলা পরিবার-পরিকল্পনা কর্মকর্তা মো: জাহাঙ্গীর হোসেন, পিরোজপুর পৌরসভার প্যানেল মেয়র মিনারা বেগম, সিনিয়র সাংবাদিক মাহমুদ হোসেন শুকুর। অ্যাডভোকেসী সভা ও প্রেস ব্রিফিং এ পিরোজপুরের বিভিন্ন জাতীয়, আঞ্চলিক ও স্থানীয় দৈনিক এবং বিভিন্ন সংবাদ সংস্থা ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিক বৃন্দ, জেলা পর্যায়ের বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা বৃন্দ এবং পরিবার কল্যাণ বিভাগের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তা এবং কর্মচারী বৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। পিরোজপুরের উপ-পরিচালক সাংবাদিকদের জানান যে, প্রসব পরবর্তী পরিবার পরিকল্পনা পদ্ধতি গ্রহন করুন-অপরিকল্পিত গর্ভধারন রোধ করুন শীর্ষক নতুন থিম নিয়ে আগামী ৭ থেকে ১২ নভেম্বর পর্যন্ত সেবা ও প্রচারের সপ্তাহ পালিত হবে। সেবা ও প্রচার সপ্তাহ চলাকালীন সময় প্রতিদিন উপজেলা ও ইউনিয়ন পর্যায় পরিবার পরিকল্পনার অস্থায়ী, দীর্ঘ মেয়াদী ও স্থায়ী পদ্ধতির বিশেষ ক্যাম্পের আয়োজন এবং সেবা প্রদান করা হবে। এছাড়া প্রসব পরবর্তী পদ্ধতি গ্রহীতার সংখ্যা বৃদ্ধিতে বিশেষ উদ্যোগ নেয়া হবে। জেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা জানান বর্তমানে এ জেলায় বছরে ২১ হাজার মহিলা সন্তান প্রসব করে থাকে যাদের এক তৃতীয়াংশ এখন বিভিন্ন সরকারি প্রতিষ্ঠানে সন্তান প্রসবের সময় ভর্তি হয়। এছাড়া বর্তমান সরকার গর্ভবতী মায়েদের সন্তান প্রসবের সময় বিনামূল্যে সরকারি এ্যাম্বুলেন্স এর সহযোগিতা প্রদান করায় প্রতিদিনই গর্ভবতী মায়েদের বিভিন্ন সরকারি প্রতিষ্ঠানে এসে সন্তান প্রসবে উৎসাহিত হচ্ছে এবং এর ফলে প্রসবকালীন মৃত্যু এবং শিশু মৃত্যুর হার কমে যাচ্ছে।

print