মঠবাড়িয়া প্রতিনিধি : কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগারের অবসরকালীন ছুটিতে থাকা সাবেক প্রধান কারারক্ষী রুস্তম আলীর লাশ কোনাবাড়ী দেওলিয়াবাড়ীর কবরস্থান থেকে দাফনের তিন দিন পর গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে উত্তোলন করা হয়। পরিবারের সিন্ধান্ত অনুযায়ী আজ শুক্রবার সকালে রুস্তুমের লাশ পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ার চড়কগাছিয়া গ্রামের পঞ্চায়েত বাড়ির পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়। এসময় নিহতের স্ত্রী নাসরিন বেগম, ভাই কারারক্ষী জামাল হোসেন, ব্যাবসায়ী ভাই শাহ্ আলমসহ পরিবারের স্বজনরা উপস্থিত ছিলেন। এদিকে দাফন অনুষ্ঠানে এলাকার শত শত মানুষ অংশগ্রহণ করেন।
গত সোমবার (২৫-০৪-১৬) সকাল সোয়া ১১টায় গাজীপুরের কাশিপুরের কেন্দ্রীয় কারাগারের সামনে প্রকাশ্যে গুলি করে সাবেক প্রধান কারারক্ষী রুস্তুম আলীকে গুলি করে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা পালিয়ে যায়।
এ ঘটনায় নিহতের স্ত্রী নাসরিন বেগম স্থানীয় থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করলে পুলিশ রুস্তুমের ভাইজির কথিত প্রেমিক হিমেলকে গ্রেফতার করে। বর্তমানে গাজীপুর ডিবি পুলিশ হিমেলকে ৩দিনের রিমান্ডে এনে জিজ্ঞাসাবাদ করছে।
নিহত রুস্তুমের লাশের ময়না শেষে তাৎক্ষনিক কোনাবাড়ী দেওলিয়াবাড়ীর অস্থায়ী কবরস্থানে দাফন করা হয়। নিহতের ভাই ও বাগেরহাট জেলা কারাগারের কারারক্ষী মোঃ জামাল হোসেন জানান, পরিবারিক সিদ্ধান্ত অনুযায়ী নিহতের স্ত্রী নাসরিন বেগম গাজীপুরের জেলা প্রসাশকের বরাবরে কবর থেকে স্বামীর লাশ উত্তোলন করে মঠবাড়িয়ায় দাফনের আবেদন করেন। বৃহস্পতিবার রাতে নিজেদের উদ্যোগে কবর থেকে লাশ উত্তোলন করে মঠবাড়িয়ায় পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়।

print