স্টাফ রিপোর্টার :  ছাত্র ইউনিয়নের কেন্দ্রিয় সংসদের সভাপতি লাকী আক্তার বলেছেন, জাপানে এমন এমন জায়গা আছে যেখানে মানুষকে অক্সিজেনে অভাবে কষ্ট করে জীবন যাপন করতে হচ্ছে। আর আমাদের দেশে পানির কোনো অভাব নেই, বাতাসের কোন অভাব নেই তারপরও নবায়নযোগ্য জ্বালানীর দিকে না তাকিয়ে আমরা গণবিধ্বংসী প্রকল্পের দিকে কেন যাব? যারা সরকারের তোষামোদী করে তারা আমাদের বলে উন্নয়ন বিরোধী। উন্নয়নতো এ দেশের মানুষের জন্য সেই মানুষ যদি না থাকে তাহলে উন্নয়ন করে লাভ কি। এনটিবিসি ভারত থেকে প্রত্যাখ্যাত হয়ে বাংলাদেশে এসে এমন একটি প্রকল্প খুলল। যে পকল্পে লাভ হলে ভারতের ৮০ শতাংশ আর ক্ষতি হলে বাংলাদেশের ৮০ শতাংশ। এমন প্রকল্প বাংলাদেশের জন্য কখনোই লাভবান হবেনা। উন্নয়ন দেখিয়ে আমরা বড় বড় ফ্লাইওভার ও সেতু কিন্ত মানব উন্নয়নে যে সূচক সেখানে বাংলাদেশ অনেক নিচুতে অবস্থান করছে। তিনি শনিবার বিকেলে পিরোজপুর শহরের স্বাধীনতা মঞ্চে বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়নে পিরোজপুর জেলা শাখার আয়োজনে সুন্দরবন বিনাশী রামপাল প্রকল্প বাতিলের দাবীতে ছাত্র সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্য এ কথা বলেন। ‘ছাত্র-জনতা ঐক্যের ডাক, সুন্দরবন রক্ষা পাক’- শ্লোগাণকে সামনে রেখে পিরোজপুরে সুন্দরবন বিনাশী রামপাল প্রকল্প বাতিলের দাবীতে ছাত্র সমাবেশে এছাড়াও বক্তব্য রাখেন, পিরোজপুর জেলা ছাত্র ইউনিয়নের সভাপতি খ.ম. মিরাজের সভাপতিত্বে সমাবেশে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, পিরোজপুর জেলা কমিউনিস্ট পার্টির সভাপতি দিলিপ পাইক, সাবেক সভাপতি ডা. তপন বসু, সহ-সভাপতি ঝন্টু লাল দাস, ঢাকা মহানগর ছাত্র ইউনিয়েনর সহ-সভাপতি দীপক শীল প্রমুখ। সভা পরিচালনা করেন কাজী নজরুল কলেজ ছাত্র ইউনিয়ন শাখার সভাপতি শান্তনু হালদার।
এ সময় বক্তরা অবিলম্বে সুন্দরবন রামপালে কয়লা ভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র বাতিলের  জোর দাবি জানান। সেইসাথে দেশের সকল বিবেকবান মানুষকে জাতীয় সম্পদ রক্ষার আন্দোলনে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানান।
বক্তারা আরো বলেন, বিদ্যুৎ উৎপাদনের অনেক বিকল্প আছে। কিন্তু সন্দুরবনের কোন বিকল্প নেই। সুন্দরবন তার অসাধারণ জীববৈচিত্র দিয়ে সারাদেশের প্রাকৃতিক ভারসাম্য রক্ষা করে, লক্ষ লক্ষ মানুষের জীবিকার সংস্থান করে, আবার প্রতিটি প্রাকৃতিক দুর্যোগে লক্ষ লক্ষ মানুষকে বাঁচায়। এই জীবন রক্ষাকারীকে ধ্বংস করে, তদুপরি বিরাট এলাকা জুড়ে মাটি ভরাট করার মাধ্যমে অধিকতর পরিবেশ নষ্ট করে সরকার কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র করতে চায়। তাই দেশের সাধারণ জনগণ কে সাথে নিয়ে তাদের প্রতিহত করা হবে হলে জানান।

print