স্টাফ রিপোর্টার : সরকারি আইনী সেবার মানোন্নয়নে সহায়তা প্রদান প্রকল্পের আওতায় মামলা জট নিরসনে জেলা লিগ্যাল এইড অফিসে বিকল্প বিরোধ নিস্পত্তি কার্যক্রমের মানোন্নয়ন শীর্ষক এক প্রশিক্ষণ কর্মশালা পিরোজপুরের জেলা ও দায়রা জজ এর সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত হয়। এ প্রশিক্ষণে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পিরোজপুরের জেলা ও দায়রা জজ মোঃ গোলাম কিবরিয়া। প্রশিক্ষণে চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট মোঃ কামরুল হাসান, অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ এস এম জিল্লুর রহমান, যুগ্ম জেলা জজ-১ মোঃ সরোয়ার আলম, জেলা লিগ্যাল এইড এর সদস্য সচিব ও যুগ্ম জেলা ও দায়রা জজ-২ মোঃ এনামুল হক বসুনীয়াসহ, পৌর মেয়র আলহাজ্ব হাবিবুর রহমান মালেক, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান, সিভিল সার্জন ডা. মোঃ ফখরুল আলম, বিচার বিভাগীয় কর্মকর্তাবৃন্দ, লিগ্যাল এইড কমিটির সদস্যবৃন্দ অংশ গ্রহন করে বক্তব্য রাখেন।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা ও দায়রা মোঃ গোলাম কিবরিয়া বলেন, ১৯৯৬-২০০১ মেয়াদে  প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার আইনগত সহায়তা আইন প্রণয়ন করেন। পরবর্তীতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকার এই আইনটির বিভিন্ন সংশোধনী এনে আইনটিকে মানব কল্যানের একটি উৎকৃষ্ট আইনে পরিণত করেছেন। এর ব্যপ্তি এখন সুপ্রিম কোর্ট, জেলা উপজেলা ইউনিয়ন পর্যায় পর্যন্ত ছড়িয়ে পড়েছে। বিভিন্ন কমিটি গঠন প্রতিটি জেলা জজ আদালতে এর কার্যালয় স্থাপন করা হয়েছে। দরিদ্র অস্বচ্ছল ও অসহায় জনগন এই আইনের সহায়তায় বিচারপ্রাপ্তিতে সুবিধা পাচ্ছেন। দেশের নি¤œ আদালত  থেকে শুরু করে সর্বোচ্চ আদালত পর্যন্ত এখন আইনের সুবিধা পাচ্ছেন পিছিয়ে থাকা জনগোষ্ঠীর বিচার প্রার্থীরা। নানা প্রচার প্রচারনা সেমিনার ও কর্মশালা আয়োজনের মধ্য দিয়ে এ সেবার বিষয় জনসচেতনতা সৃষ্টি করা হচ্ছে এবং যাদের জন্য এ আইন তারা বিষয়টি  সম্পর্কে জানতে সক্ষম হয়েছে।
আইনি পরামর্শ বিকল্প বিরোধ নিম্পত্তি  বিধিমালা-২০১৫ সম্পর্কে প্রধান অতিথি জেলা ও দায়রা জজ মোঃ গোলাম কিবরিয়া বলেন, প্রাতিষ্ঠানিক আদালতে মামলার বিচার সম্পন্ন হলেও পক্ষদের মধ্যে বিরোধ যুগের পর যুগ এমনকি বংশানুক্রমে চলতে থাকে। কিন্তু বিকল্প বিরোধ নিম্পত্তি হলে এই প্রতিহিংসার অবসন হয়। বর্তমান সরকারের এই মহতি উদ্যোগ বাস্তবায়নে তিনি সকলের একযোগে কাজ করার আহ্বান জানান। তিনি প্রশিক্ষণে অংশগ্রহণকারীদের হাতে সনদপত্র তুলে দেন।

print