নাজিরপুর প্রতিনিধি : পিরোজপুরের নাজিরপুরে জমাজামি নিয়ে বিরোধের জের ধরে সুলতান গাউস (৫৮)নামে একজনকে হাত-পা ভেঙ্গে দিয়েছে প্রতিপক্ষ। এ ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে মো. শহিদুল ইসলাম গাউস (৬০) কে গ্রেফতার করেছে থানা পুলিশ। ঘটনাটি ঘটেছে শনিবার উপজেলার কলারদোয়ানিয়া ইউনিয়নের মুগারঝোড় গ্রামে। হামলায় আহত সুলতান গাউসকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকার পঙ্গু হাসপাতালে প্রেরন করা হয়েছে। সুলতান গাউসের স্ত্রী তাসলিমা বেগম বাদী হয়ে রবিবার থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন।
তাসলিমা জানান, গত ২ বছর আগে তাদের দখলীয় ১০/১৫ কাঠা জমি তাদের বংশীয় শামীম গাউস ও শহিদুল গাউস রেকর্ড করে  নেয়া সহ তাদের বাড়ির পথ আটকে বেড়া দেন। এ নিয়ে কথা কাটাকাটি হলে গত শনিবার তার স্বামী বাজার করার উদ্দেশ্যে বাড়ি থেকে বেড় হয়ে স্থানীয় মসজিদ পর্যন্ত যান। সেখানে পূর্ব থেকে ওৎ পেতে থাকা শামীম গাউসের পুত্র শরিফুল গাউস ও শহিদুল গাউসের পুত্র তানভীর গাউস তাকে হত্যার উদ্দেশ্যে তাদের হাতে থাকা লোহার রড দিয়ে পিটিয়ে হাত-পা ভেঙ্গে দেয়। এ সময় আহত সুলতানকে রক্ষা করতে স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধা বারেক গাউসের স্ত্রী কহিনুর বেগম এগিয়ে আসলে তাকেও হামলাকারীরা মারধর করে বলে ওই কহিনুর বেগম জানান। এ ব্যাপারে নাজিরপুর থানা পুলিশের অফিসার ইনচার্জ মো. হাবিবুর রহমান জানান, এ ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের হয়েছে এবং শহিদুল ইসলাম গাউস নামে একজনকে আটক করা হয়েছে।

print