সংক্ষিপ্ত স্কোর:

অস্ট্রেলিয়া ১ম ইনিংস: ১১৮ ওভারে ৩৭৭/৯ (রেনশ ৪, ওয়ার্নার ১২৩, স্মিথ ৫৮, হ্যান্ডসকম ৮২, ম্যাক্সওয়েল ৩৮, কার্টরাইট ১৮, ওয়েড ৮, অ্যাগার ২২ম কামিন্স ৪, ও’কিফ ৮*, লায়ন ০*; মিরাজ ৩/৯৩, মুস্তাফিজ ৩/৮৪, সাকিব ১/৮২, তাইজুল ১/৭৮, নাসির ০/১৪, মুমিনুল ০/৬, সাব্বির ০/৯)

অ্যাগারকে বোল্ড করে সাকিবের উইকেট

২২ রান করে অ্যাগার ফিরে যাওয়ার সময় অস্ট্রেলিয়ার স্কোর ৩৭৬/৯। স্টিভ ও’কিফের সঙ্গে ক্রিজে যোগ দিয়েছেন ন্যাথান লায়ন। অতিথিরা এগিয়ে ৬৯ রানে।

অ্যাগারকে জীবন দিলেন সৌম্য

আক্রমণে ফিরেই উইকেট পেতে পারতেন সাকিব আল হাসান। তার বলে স্লিপে সহজ ক্যাচ দিয়েছিলেন অ্যাশটন অ্যাগার। কিন্তু হাতে জমাতে পারেননি সৌম্য সরকার। সে সময় ২১ রানে ছিলেন অ্যাগার। এর আগে স্লিপেই ডেভিড ওয়ার্নারের ক্যাচ ছেড়েছিলেন সৌম্য।

রিভিউ নিয়ে কামিন্সকে ফেরাল বাংলাদেশ

মেহেদী হাসান মিরাজের বল বিশাল টার্নে অপ্রস্তুত হয়ে পড়া প্যাট কামিন্স শট না খেলে প্যাড দিয়ে ঠেকান। এলবিডব্লিউর জোরালো আবেদন করেন বাংলাদেশের ফিল্ডাররা। তাতে সাড়া দেননি আম্পায়ার নাইজেল লং। সাথে সাথেই রিভিউ নেন মুশফিকুর রহিম। তাতে পাল্টায় সিদ্ধান্ত, অস্ট্রেলিয়া হারায় অষ্টম উইকেট।

৪ রান করে কামিন্স ফিরে যাওয়ার সময় অস্ট্রেলিয়ার স্কোর ৩৬৪/৮। অ্যাশটন অ্যাগারের সঙ্গে ক্রিজে যোগ দিয়েছেন স্টিভ ও’কিফ। অতিথিরা এগিয়ে ৫৯ রানে।

ম্যাক্সওয়েলকে বিদায় করলেন মিরাজ

৩৮ রান করে ম্যাক্সওয়েল ফিরে যাওয়ার সময় অস্ট্রেলিয়ার স্কোর ৩৪৬/৭। অ্যাশটন অ্যাগারের সঙ্গে ক্রিজে যোগ দিয়েছেন প্যাট কামিন্স। অতিথিরা এগিয়ে ৩৯ রানে।

ওয়েডকে ফেরালেন মুস্তাফিজ

৮ রান করে ওয়েড ফেরার সময় অস্ট্রেলিয়ার স্কোর ৩৪২/৬। গ্লেন ম্যাক্সওয়েলের সঙ্গে ক্রিজে যোগ দিয়েছেন অ্যাশটন অ্যাগার। অতিথিরা এগিয়ে ৩৭ রানে।

অস্ট্রেলিয়ার লিড, বাংলাদেশের ৩ উইকেট

বৃষ্টির বাধায় খেলাই হয়নি প্রথম সেশনে। দ্বিতীয় সেশনে লিড নিয়েছে অস্ট্রেলিয়া। ডেভিড ওয়ার্নার, পিটার হ্যান্ডকম ও হিল্টন কার্টরাইটকে ফিরিয়ে কিছুটা প্রাপ্তি আছে বাংলাদেশেরও।

চা-বিরতিতে যাওয়ার সময় অস্ট্রেলিয়ার স্কোর ৩২১/৫। গ্লেন ম্যাক্সওয়েল অপরাজিত ২৫ রানে। অতিথিরা এগিয়ে ১৬ রানে।

এই সেশনে দুটি নিশ্চিত সুযোগ হাতছাড়া করেছে বাংলাদেশ। একবার করে জীবন পেয়েছেন ম্যাক্সওয়েল ও কার্টরাইট। আগের দিন ওয়ার্নারকে জীবন দেওয়ার চড়া মাশুল দিতে হয়েছে। বাঁহাতি উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান পেয়েছেন সিরিজে টানা দ্বিতীয় সেঞ্চুরি।

মিরাজই ফেরালেন কার্টরাইটকে

১৮ রান করে কার্টরাইট ফেরার সময় অস্ট্রেলিয়ার স্কোর ৩২১/৫। অতিথিরা এগিয়ে ১৬ রানে।

অস্ট্রেলিয়ার লিড

প্রথম ইনিংসে লিড নিয়েছে অস্ট্রেলিয়া। একবার করে জীবন পাওয়া দুই ব্যাটসম্যান গ্লেন ম্যাক্সওয়েল ও হিল্টন কার্টরাইট এগিয়ে নিচ্ছেন অতিথিদের।

৯২ ওভার শেষে অস্ট্রেলিয়ার স্কোর ৩১০/৪। স্টিভেন স্মিথের দল এগিয়ে ৫ রানে।

ওয়ার্নারকে ফেরালেন মুস্তাফিজ

নিজের জন্মদিনে ওয়ার্নারের দামি উইকেট পেলেন মুস্তাফিজ। বাঁহাতি পেসারের বাউন্সার লেগ গালির ওপর দিয়ে পার করে দিতে চেয়েছিলেন অস্ট্রেলিয়ার সহ-অধিনায়ক। ঠিক মতো পারেননি, ক্যাচ যায় ইমরুলের কাছে। তৃতীয় প্রচেষ্টায় হাতে জমান তিনি।

১২৩ রান করে ওয়ার্নারের বিদায়ের সময় অস্ট্রেলিয়ার স্কোর ২৯৮/৪। গ্লেন ম্যাক্সওয়েলের সঙ্গে ক্রিজে যোগ দিয়েছেন হিল্টন কার্টরাইট।

ম্যাক্সওয়েলকে জীবন দিলেন মিরাজ

সাকিবের দুর্দান্ত থ্রোয়ে ভাঙল প্রতিরোধ

এক রান হলেই শতক হবে ডেভিড ওয়ার্নারের। বাঁহাতি ব্যাটসম্যানের চেয়ে যেন রানটার জন্য বেশি উৎসাহী ছিলেন পিটার হ্যান্ডসকম। সতীর্থ বল স্কয়ার লেগে ঠেলে দিতেই ছুটেছিলেন তিনি। রান হবে না বুঝতে পেরে ফেরার চেষ্টা করেছিলেন। কিন্তু সাকিব আল হাসানের সরাসরি থ্রো ভেঙে দেয় স্টাম্প।

৮২ রান করে হ্যান্ডসকম ফিরে যাওয়ার সময় অস্ট্রেলিয়ার স্কোর ২৫০/৩। ওয়ার্নারের সঙ্গে ক্রিজে যোগ দিয়েছেন গ্লেন ম্যাক্সওয়েল।

ওয়ার্নার-হ্যান্ডসকমের দেড়শ রানের জুটি

সোয়া একটায় খেলা শুরু

বৃষ্টি থামার পর রোদ উঠেছে। আউটফিল্ড শুকানোর কাজ চলছে। জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে তৃতীয় দিনের খেলা শুরু হবে দুপুর সোয়া একটায়।

মাঠের বাইরের দুটি উইকেটে অনুশীলন করছে বাংলাদেশ ও অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেটাররা। এক প্রান্তে ক্যাচিং অনুশীলন করাচ্ছেন রিচার্ড হ্যালসল।

বুধবার খেলা হবে অন্তত ৬৭ ওভার। আলো থাকা সাপেক্ষে খেলা চলবে সন্ধ্যা ছয়টা পর্যন্ত।

বৃষ্টি থেমেছে, মাঠ প্রস্তুতে তোড়জোড়

বেলা সোয়া ১২টার দিকে বৃষ্টি থেমেছে। খেলার জন্য মাঠ প্রস্তুত করতে কাজ করছেন গ্রাউন্ডসম্যানরা। মাঠ পরিদর্শন করছেন আম্পায়াররা।

বৃষ্টিতে ভেসে গেল প্রথম সেশন

বৃষ্টির দাপটে ভেসে গেছে তৃতীয় দিনের প্রথম সেশনের খেলা। বৃষ্টির মধ্যে লাঞ্চে গেছে বাংলাদেশ ও অস্ট্রেলিয়া।

খেলা শুরুতে দেরি

print