স্টাফ রিপোর্টার : শরণার্থী বিষয়ক জাতিসংঘের সহকারী হাইকমিশনার ভলকার টুর্ক রোহিঙ্গা শরণার্থীদের কাছে অবাধে প্রয়োজনীয় মানবিক সহায়তা পৌঁছানো ও তাদেরকে নিরাপদে ও সম্মানের সঙ্গে মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে প্রত্যাবাসনের আহ্বান জানিয়েছেন। বৃহস্পতিবার ঢাকায় ইউএনএইচসিআর’র এক বিবৃতিতে বলা হয়, জাতিসংঘের এই কর্মকর্তার গতকাল শেষ হওয়া মিয়ানমারে দুই দিনের সফরের সময় তিনি এই আহ্বান জানান। টুর্ক মিয়ানমারের রাজধানী নেপিডো সফর করেন। এ সময় তিনি স্টেট কাউন্সেলর অফিসের মিয়ানমারের ইউনিয়ন মিনিস্টার ইউ কাউ ট্রিন্ট সুই ,জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা ইউ থাংটুন, সমাজকল্যাণ, ত্রাণও পুনর্বাসন মন্ত্রী ড. উইন মিয়াত আই এবং শ্রম, অভিবাসন ও জনসংখ্যা মন্ত্রী ইউ থেইন সু’র সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। বৈঠকগুলোতে জাতিসংঘের সহকারী হাইকমিশনার রাখাইন রাজ্যে নিরাপদ পরিবেশ নিশ্চিত করা ও সকল জনগোষ্ঠীকে সুরক্ষা প্রদানের আহ্বান জানান। তাদের কাছে অবাধে প্রয়োজনীয় মানবিক সহায়তা প্রবেশের কথাও তিনি বলেন, যাতে তাদের জীবন রক্ষা পায় এবং তাদের মধ্যে আত্মবিশ্বাস সৃষ্টি হয়। রাখাইন রাজ্য থেকে বাংলাদেশে পালিয়ে আসা লাখ লাখ শরণার্থীর সেখানে ফিরে যাওয়ার অধিকারের কথা পুনর্ব্যক্ত করে টুর্ক তাদেরকে তাদের মূল জায়গায় নিরাপদে, স্বেচ্ছায় এবং টেকসই প্রত্যাবর্তনের আবেদন জানান। টুর্ক ৩১ অক্টোবর ইউএনএইচসিআর’র সঙ্গে যৌথভাবে আন্তর্জাতিক মানের স্বেচ্ছা প্রত্যাবর্তনের দিক-নির্দেশনা নিয়ে কর্মশালার উদ্যোগ গ্রহণ করায় মিয়ানমার সরকারকে ধন্যবাদ জানান। বিবৃতিতে বলা হয়, সহকারী হাইকমিশনারের এই আঞ্চলিক সফর থাইল্যান্ডে অব্যাহত থাকবে এবং তিনি আগামী সপ্তাহের প্রথম দিকে বাংলাদেশ এই সফর শেষ করবেন।

print