আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ধাক্কা দিয়ে আওয়ামী লীগ সরকারের পতন ঘটানো সম্ভব নয়। আওয়ামী লীগের শিকড় বাংলাদেশের মাটির অনেক গভীরে, ধাক্কা দিয়ে এই বটবৃক্ষের পতন হবে না।

মির্জা ফখরুলকে উদ্দেশ্যে মন্ত্রী বলেন, ‘ধাক্কা দিয়ে আওয়ামী লীগকে ফেলা যাবে না। আওয়ামী লীগ বিএনপি নয়। ওই মেয়র হানিফের জনতার মঞ্চের এক ধাক্কায় বিএনপি সরকারের পতন হয়েছিল। মনে আছে আপনাদের আওয়ামী লীগ সেই দল। বঙ্গবন্ধুর আওয়ামী লীগ শেখ হাসিনার নেতৃত্বে এগিয়ে চলছে। এই আওয়ামী লীগের শিকড় বাংলাদেশের মাটিতে এখন অনেক গভীরে, ধাক্কা দিয়ে এই বটবৃক্ষের পতন হবে না।’

ঢাকার প্রথম নির্বাচিত মেয়র প্রয়াত মোহাম্মদ হানিফের ১১তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে আজ দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের নগর ভবন প্রাঙ্গনে আয়োজিত স্মরণ সভায় তিনি এ কথা বলেন। ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন এই আলোচনা সভার আয়োজন করে।

ঢাকা মহানগর দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র সাঈদ খোকনের সভাপতিত্বে আয়োজিত এই অনুষ্ঠানে সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন, বিএম মোজাম্মেল, আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন ও খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, দপ্তর সম্পাদক ড. আবদুস সোবহান গোলাপ, যুবলীগের চেয়ারম্যান ওমর ফারুক চৌধুরী, মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল হাসনাত, সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ, মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের সভাপতি ইসমাইল চৌধুরী সম্রাট প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

গণঅভ্যুথান শব্দটি এখন জাদুঘরে দাবি করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, বিএনপি রঙ্গিন স্বপ্ন দেখছে, কিন্তু প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উন্নয়ন-অর্জন দিয়ে গণঅভ্যুথান শব্দটিকে জাদুঘরে পাঠিয়ে দিয়েছেন। গণঅভ্যুথান এখন জাদুঘরে, গণঅভ্যুথান স্বপ্ন এখন দু:স্বপ্নের নামান্তর। এই দু:স্বপ্ন দেখে কোন লাভ নেই।

তিনি বলেন, দেশের জনগণ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকারের উন্নয়নে এত খুশি যে সাড়ে আটবছর বারে বারে আন্দোলনের ডাক দিলেও জনগণ তাতে সাড়া দেয় নি। সাড়ে আট বছরে সাড়া দেয়নি, আগামি এক বছরেও জনগণ বিএনপির ডাকে সাড়া দিবে না।

দলীয় নেতাকর্মীদের আগামী নির্বাচনকে সামনে রেখে মানুষের ঘরে ঘরে যাওয়ার পরামর্শ দিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘জেতার আগেই জিতে গেছি এই মন মমানসিকতার পূনরাবৃত্তি যেন আগামী নির্বাচনে না হয়। এখন থেকে ভোটের জন্য মানুষের ঘরে ঘরে যেতে হবে। ভোট চাইতে হবে।’

কাদের বলেন, বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ বিশ্ব ঐতিহ্যের স্বীকৃতি পাওয়ায় দেশে নব জাগরণ শুরু হয়ে গেছে। এই জাগরণের ঢেউকে নির্বাচনের আগ পর্যন্ত রাখতে হবে। ঘরে ঘরে নির্বাচনের প্রস্তুতি শুরু করে দিন।

print