স্টাফ রিপোর্টার : বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতের হাইকমিশনার হর্ষ বর্ধন শ্রিংলা বলেছেন, ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও ইন্দিরা গান্ধী বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্ক স্থাপনে শক্তিশালী বিজ বপন করেছিল। বর্তমানে বঙ্গবন্ধুর কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির চেষ্টায় তা নতুন উচ্চতায় পৌঁছেছে। আশা করছি, আমাদের এই সম্পর্ক চিরদিন অবিচ্ছেদ্য থাকবে।’ রবিবার দুপুরে পিরোজপুরের ভা-ারিয়া মজিদা বেগম মহিলা বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ মাঠে এক সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন।
হর্ষবর্ধন বলেন, ‘১৯৭১ সালে বঙ্গবন্ধুর উৎসাহে বাংলাদেশের মুক্তিযোদ্ধারা ও ভারতীয় সৈন্যরা এক সঙ্গে যুদ্ধ করেছিল। বাংলাদেশের স্বাধীনতার জন্য এক সঙ্গে রক্ত দিয়েছিল। আর সেটিই ছিল ভারতীয়দের গর্বের মুহূর্ত।’
তিনি আরও বলেন, ‘বাংলাদেশের বহুমাত্রিক সম্প্রীতি দেখে আমি আপ্লুত। মন্ত্রী আনোয়ার হোসেন মঞ্জু ভারতের একজন ভালো বন্ধু। তিনি বাংলাদেশ ও ভারতের সু-সম্পর্কের জন্য কাজ করেছেন। বাংলাদেশের উন্নয়নের জন্য ভারত আপনাদের সহায়তা করতে প্রস্তুত। আমরা অবশ্যই শান্তিতে ও সমৃদ্ধিতে একে অপরের পাশে থাকবো। ’
হর্ষবর্ধন বলেন, ‘বন্ধুত্বের চেতনা থেকে ১১টি ওয়াটার ট্রিটমেন্ট প্লান্ট স্থাপন করা হচ্ছে। গত পাঁচ বছরে বাংলাদেশ-ভারত ১০৫ কোটি টাকার প্রকল্প শেষে করেছে। আশ করছি এই সাহায্য বাংলাদেশের বন্ধুদের জীবনে গুনগত পরিবর্তন আনবে।’
পিরোজপুর জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মহিউদ্দিন মহারাজের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন বন ও পরিবেশ মন্ত্রী আনোয়ার হোসেন মঞ্জু, পিরোজপুরের জেলা প্রশাসক মো. খায়রুল আলম শেখ, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ সালাম কবির ও ইত্তেফাকের প্রকাশক তারিন হোসেন মঞ্জু।

print