দ্বিতীয় কোয়ালিয়ারের পর থেকেই বাংলাদেশ ক্রিকেট পাড়ায় আলোচনার বিষয়বস্তু ছিল কার হাতে উঠছে বিপিএল সিজন-৫ এর  ট্রপি? শক্তিতে রংপুর-ঢাকা ফিফটি-ফিফটি হওয়াতে এ নিয়ে ধাঁধায় ছিল ভক্তকূল। তবে কঠিন এই ধাঁধার উত্তর মিলল মঙ্গলবার। ঢাকাকে লজ্জাজনকভাবে হারিয়ে চতুর্থবারের মতো শিরোপা স্পর্শের স্বাদ পেল মাশরাফি। জাতীয় ওয়ানডে দলের অধিনায়কের এটি চতুর্থ শিরোপা হলেও রংপুরের প্রথম।

বিপিএলের নির্ধারিত সূচী অনুযায়ী মঙ্গলবার (১২ ডিসেম্বর) হোম অব ক্রিকেট মিরপুরে সন্ধ্যা ৬টায় শুরু হয় ম্যাচটি। ম্যাচটিতে টস জিতে রংপুরকে ব্যাটিংয়ের আমন্ত্রণ জানায় ঢাকা ডায়নামাইটসের অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। তার সে সিদ্ধান্তটা যে মস্তবড় ভুল ছিল তা টের পাওয়া গেল রংপুর ইনিংসের ৬-৭ ওভার গড়ানোর পরই।  কারণ এই সময় মিরপুরে রীতিমত ব্যাটিং ঝড় তুলেন রংপুরের দুই ব্যাটসম্যান ম্যাককালাম ও ক্রিস গেইল। দুইজনে মিলে গড়েন ২০১ রানের জুটি।  নির্ধারিত ২০ ওভারে যা ভাঙতে পারেনি ঢাকার কোন বোলাররা।

ম্যাচটিতে ১৮ ছয় ও ৫ চারে ১৪৬* রান তুলেন গেইল। যা বিপিএল ইতিহাসে সর্বোচ্চ। এছাড়া ব্রেন্ডন ম্যাককালাম খেলেন ৫১ রানের ইনিংস।  এই একটি রেকর্ড ছাড়াও আজকের ম্যাচে মোটে ৭টি রেকর্ড গড়েছেন গেইল (নিউজের শেষে ৭টি রেকর্ডের বিস্তারিত দেয়া হলো)।  যাই হোক, সর্বোপরি গেইল-ম্যাককালামের রেকর্ডময় জুটিতে ২০৬ রান সংগ্রহ করে রংপুর।
রংপুরের পাহাড়সময় টার্গেট পাড়ি দিতে নেমে রানের খাতায় একরান যোগ হতেই ওপেনার মেহেদী মারুফকে হারিয়ে বসে ঢাকা। এর পর দলীয় ২৯ রানের মাথায় ডেনলি (০), লুইস (১৫), পোলার্ডকে (৫) হারিয়ে একেবারে কোনঠাসা হয়ে পড়ে সাকিবরা।

এরপর অধিনায়ক সাকিব অনেক চেষ্টা করেন দলকে বিপদ সীমা থেকে বের করতে।  কিন্তু না পারেননি। যেখানে ব্যর্থ বিগ বাজেটে কেনা ডেনলি-লুইস ও পোলার্ডের মতো বিশ্ব তারকারা। সেখানে চেষ্টা করেও ব্যর্থ সাকিব।  দেশীয় অলরাউন্ডার নাজমুলের বল ব্যাট ঘুরিয়ে পেছনে মারতে গিয়ে সরাসরি বোল্ড হয়ে সাজঘরে ফেরেন তিনি। মাঠ ছাড়ার আগে তার স্কোরবোর্ডে জমা হয় ২৬ রান।  সাকিব আউট হওয়ার পর পরই মাঠ ছাড়েন মোসাদ্দেক ও শহীদ আফ্রিদি।

তবে এতসব কষ্টের মাঝেও শান্তভাবে ব্যাটিং উপহার দেন ঢাকার উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান জহিরুল।ক্যারিবীয়ান তারকা নারিনকে নিয়ে দলের সম্মান রক্ষার্থে দলীয় স্কোরবোর্ডে কিছু রান যোগ করেন।  তুলে নেন টি-২০ ক্যারিয়ারে প্রথম হাফ সেঞ্চুরি। এর পর শেষ অবধি নির্ধারিত ২০ ওভারে ১৪৯ রানে থেমে যায় ঢাকার ইনিংস। অর্থাৎ ৫৭ রানে জয় তুলে নেয় রংপুর।

ম্যাচটিতে রংপুরের হয়ে সোহাগ গাজী-উদানা-নাজমুল দুটি করে উইকেট লাভ করেন। এছাড়া মাশাফি-রুবেল হোসেন ও রোবি বোপারা একটি করে উইকেটের দেখা পান।

এদিন ম্যাচ শেষে মিডিয়ার সামনে দলের জয়ের ব্যাপারে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেন রংপুর রাইডার্সের অধিনায়ক মাশরাফি। তিনি ক্রিস গেইলের ভূয়সী প্রশংসা করে বলেন,  গেইল ভয়ঙ্কর একজন ক্রিকেটার। আমি চেয়েছিলাম সে এভাবেই খেলুক। পুরো বিশ ওভার সে খেলবে আর টর্নেডো হবেনা, সেটা আমরা ভাবতেই পারিনা। আসলে শিরোপা জেতার রহস্য গেইল।  তার কারণেই শিরোপা জিতেছি আমরা।

এছাড়া সর্বোপরি তিনি দলের সবাইকে ধন্যবাদ জানান।

print