তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোগান রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশকে আরো সহায়তা প্রদানের আশ্বাস দিয়েছেন।

বুধবার ইস্তাম্বুল কংগ্রেস এন্ড এক্সিবিশন সেন্টারে ইসলামিক সহযোগিতা সংস্থার (ওআইসি) বিশেষ শীর্ষ সম্মেলনের পাশাপাশি রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদের সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বৈঠকে এরদোগান এ আশ্বাস দেন। তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশের ভূমিকার প্রশংসা করেন।

রাষ্ট্রপতি হামিদ বাস্তুচ্যূত রোহিঙ্গা ইস্যুতে আন্তরিক সহায়তা প্রদানের জন্য তুরস্কের প্রেসিডেন্টকে ধন্যবাদ জানান।
আবদুল হামিদ বলেন, দুই দেশের মধ্যে দিনে দিনে বন্ধুত্ব ও দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক বৃদ্ধি পাচ্ছে এবং ভবিষ্যতে তা অব্যাহত থাকবে।

তিনি ওআইসি’র বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সহকারী মহাসচিব পদে নির্বাচনে বাংলাদেশের প্রার্থীর পক্ষে তুর্কী নেতার সমর্থন ও সহযোগিতা কামনা করেন।

তিনি যুক্তরাষ্ট্র কর্তৃক জেরুজালেমকে ইসরাইলের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি প্রদান এবং সেখানে মার্কিন দূতাবাস স্থানান্তরের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে তীব্র প্রতিবাদ জানিয়ে ওআইসি’র বিশেষ শীর্ষ সম্মেলন আয়োজনের সময়োচিত উদ্যোগ গ্রহণের জন্য তুরস্কের প্রেসিডেন্টকে ধন্যবাদ জানান।

এরদোগান রোহিঙ্গা ইস্যুতে ব্যাপক আলাপ-আলোচনার জন্য বাংলাদেশের প্রশংসা করেন। তিনি বলেন, তার দেশ সকল ক্ষেত্রে দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক সম্প্রসারণকে অগ্রাধিকার দিচ্ছে।

পরে, সুদানের প্রেসিডেন্ট ওমর হাসান আহমদ আল-বশির রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদের সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বৈঠকে মিলিত হন। বৈঠকে সুদানের প্রেসিডেন্ট বিশ্বব্যাপী বিভিন্ন দেশে জাতিসংঘের শান্তিরক্ষা মিশনে বাংলাদেশের শান্তিরক্ষীদের ভূমিকার প্রশংসা করেন।

রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ সুদানের প্রেসিডেন্টকে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, দু’দেশের মধ্যে চমৎকার সম্পর্ক বিদ্যমান রয়েছে।

print