স্টাফ রিপোর্টার : পিরোজপুর-১ আসনের সাংসদ একেএমএ আউয়ালের বিরুদ্ধে প্রভাব খাটিয়ে নিজ স্ত্রীর মালিকানাধীন ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান মেসার্স সুভাষ এন্টারপ্রাইজ ও মেসার্স বুশরা ট্রেড ইন্টারন্যাশনারে নামে ইজারা পাইয়ে দেয়ার অভিযোগ ইতিপূর্বে অভিযোগ ইতিপূর্বে বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে গুরুত্ব সহকারে প্রকাশিত হয়েছে। কিন্তু সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ এখনও নীরব।
উক্তরূপ অবৈধ প্রভাবে প্রভাবাঞ্চিত হয়ে সংশ্লিষ্ট সড়ক ও জনপথের কতিপয় অসাধু প্রকৌশলী ও কর্মকর্তা এ কাজে সহায়তা করছেন। তারা সওজের আইন ও বিধি বিধানের কোন তোয়াক্কা না করে গত ০৬/০২/২০১৮ ইং তারিথের স্বারক নং-২৩৪ ও২৩৫ এর মাধ্যেমে ২০১৫-২০১৬ অর্থ বছরের জন্য ২০১৮ সালে উক্তরূপ ইজারা পত্র প্রদান করেছেন। অথচ সওজ প্রণীত সংশোধীত বিধিমালার বিধি ৫.২.৩ এ ইজারা চুক্তির মেয়াদ ০৩ (তিন) বছর হবে। উহার কার্য্যকারিতা হবে ০১.১০.২০১৭ ইং তারিখ হতে। কিন্তু সওজ কর্তৃপক্ষ উক্ত বিধি ভঙ্গ করে পুন: ডাক ছাড়াই দীর্ঘ প্রায় ২ বছর পরে ইজারা প্রদান করতে তৎপর রয়েছে। অপর বিধি ৫.২.৫ এ বলা হয়েছে ট্রাফিক কাউন্ট সার্ভের মাধ্যমে যানবাহনের শ্রেণী অনুযায়ী সংখ্যা নিরুপন করে ইজারার সম্ভব্য ভিত্তিমূল্য নির্ধারিতত হবে। বলেশ্বর ব্রীজে ১৪.০৬.২০১৭-২০.৬.২০১৭ ইং তারিখ পর্যন্ত সার্ভে কাউন্টিং এ দেয়া যায় প্রতিদিন গড়ে ৩৭,১৬৭/- টাকা তৎঅনুযায়ী বার্ষিক আয় হয় ১,৩৫,৬৫,৯৫৫/- টাকা। কিন্তু অনিয়মের মাধ্যমে সাংসদের স্ত্রীর প্রতিষ্ঠানকে বার্ষিক ইজারা মূল্য ১,১৩,৭০,০০০/- টাকা নির্ধারনে ইজারা দেয়া হয়। উহাতে সওজ এর হিসাব মতে সরকারের বার্ষিক রাজস্ব ক্ষতির পরিমান ২১,৯৫,৯৫৫/- টাকা দাঁড়ায়। পক্ষান্তরে পূর্বের ইজারা গ্রহীতা মেসার্স রাজন ব্রাদার্স উদ্ধৃত মূল্যের ৫০% অতিরিক্ত মূল্য ইজারা প্রাপ্তির জন্য সওজ কর্তৃপক্ষের নিকট আবেদন করেন। এই মর্মে মহামান্য হাইকোর্ট বিভাগের নির্দেশনা রয়েছে। “ বেকুটিয়া ফেরীঘাটে’র” সার্ভে কাউন্টিং এর তথ্য মতে পূর্বের ইজারা মূল্য হতে ১১.৫৯% কমে স্থানীয় সাংসদের স্ত্রীর নীজ নামীয় ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান মেসার্স বুশরা ট্রেড ইন্টারন্যাশনালকে ইজারা প্রদান করার বিষয়ে চূড়ান্ত পর্যায়ে রয়েছে।

print