স্টাফ রিপোর্টার : পিরোজপুরে ৩ দিন ব্যাপী ডিজিটাল উদ্ভাবনী মেলার শেষ হয়েছে। এ উপলক্ষ্যে আয়োজিত সমাপনী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান। শহরের গোপাল কৃষ্ণ টাউন ক্লাব ময়দানে অনুষ্ঠিত এ সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা প্রশাসক মোঃ আবু আহমদ ছিদ্দীকী। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন জেলা প্রাথামিক শিক্ষা অফিসার এস এম মিজানুর রহমান, জেলা শিল্পকলা একাডেমীর সাধারণ সম্পাদক জিয়াউল আহসান গাজী, পিরোজপুরের সিনিয়র সাংবাদিক গৌতম চৌধুরী, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) এস এম সোহরাব হোসেন, জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা কাজী তোফায়েল হোসেন। ৩দিন ব্যাপী এ ডিজিটাল উদ্ভাবনী মেলার সাথে বই মেলারও আয়োজন করা হয়। মেলায় ১৩টি বুক স্টল এবং ৩৮টি ডিজিটাল উদ্ভাবনী ষ্টলে উপচে পড়া দর্শকের উপস্থিতি ছিল লক্ষ্যনীয়। জেলা ই সেবা কেন্দ্র, সিভিল সার্জন অফিস, জেলা নির্বাচন অফিস, সড়ক ও জনপথ বিভাগ, পিরোজপুর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতিসহ সরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান এবং ডাক দিয়ে যাই, উদ্দীপনসহ বিভিন্ন বেসরকারি সংস্থার স্টলে সবচেয়ে বেশি দর্শক উপস্থিত হয়। জেলা প্রশাসক সমাপনী অনুষ্ঠানে শিকদার মল্লিক ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টার ও পত্তাশী ইউনিয়ন ডিজিটাল স্টোরকে শ্রেষ্ট ডিজিটাল সেন্টারের পুরস্কার প্রদান করেন। এছাড়া পিরোজপুর সরকারি মহিলা কলেজ, সরকারি সোহরাওয়ার্দী কলেজ এবং তেজদাসকাঠী কলেজ শ্রেষ্ট শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পুরস্কার অর্জণ করে। মঠবাড়িয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জিএম সরফরাজ শ্রেষ্ট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার স্বীকৃতি সনদ ও পুরস্কার লাভ করেন। শেষ্ট পোর্টালের দপ্তর এর পুরস্কার পান জেলা প্রশাসকের কার্যালয় ও নাজিরপুরের উপজেলা নির্বাহী অফিসার ঝুমুর বালা। এছাড়া মুক্তিযুদ্ধ ও বঙ্গবন্ধুর গল্প বিষয়ক কুইজের পুরস্কার ৪টি গ্রুপে ১২ জনক শিক্ষার্থী প্রদান করা হয়। আমার চোখে ডিজিটাল বাংলাদেশ পাওয়ার পয়েন্ট প্রেজেন্টেশন প্রতিযোগিতার পুরস্কার দেওয়া হয় ৪টি গ্রুপে। সমাপনী বক্তব্যে জেলা প্রশাসক বলেন, ২০০৯ সালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার এবং তার সুযোগ্য পুত্র সজিব ওয়াজেদ জয় এর নেতৃত্বে আজ ডিজিটাল বাংলাদেশ স্বপ্ন নয় বাস্তাব। তিনি তার কার্যালয়ের এবং তার অধিনন্থ জেলা ব্যাপী বিসৃস্ত বিভিন্ন কার্যালয়ের ডিজিটাল সেবার বিস্তারিত বর্ননা দিয়ে বলেন এজেলার লাখ লাখ মানুষ প্রতিদিন বিভিন্নভাবে ঘরে বসে এবং ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টারে এসে বিভিন্নমুখী ই সেবা পাচ্ছেন এবং উপকৃত হচ্ছেন।

print