নিশ্চিত করে বলা না গেলেও, একজন বঙ্গবন্ধুর সৈনিক এবং বঙ্গবন্ধুর আদর্শের কর্মী হিসেবে আমি মনোনয়নের ব্যাপারে শতভাগ নিশ্চিত বলে মন্তব্য করেছেন পিরোজপুর পৌরসভার মেয়র ও জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি আলহাজ্ব মো: হাবিবুর রহমান মালেক।

তিনি আরও বলেছেন, শততার সহিত কাজ করে এরকম লোকই জননেত্রী শেখ হাসিনার দরকার। আর এরকম লোকই তিনি খুজে বেড়াচ্ছেন। পরিচ্ছন্ন জীবনযাপন এবং নিজের খেয়ে পরের কাজ করাই আমার ধর্ম এবং আমাদের দলের নেত্রীও এটা চান। এজন্যই আমি আশাকরি যে আগামী একাদশ সংসদ নির্বাচনে নেত্রী পিরোজপুর ১ আসনে আমাকেই নৌকার প্রার্থী হিসেবে বিবেচনা করবেন।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের এখনও বাকি প্রায় ছয় মাস। কিন্তু পিরোজপুর-১ সংসদীয় আসনে এরই মধ্যে বইতে শুরু করেছে নির্বাচনী বাতাস। আর এরই মধ্যে বৃহস্পতিবার বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল ডিবিসি নিউজের একটি আয়োজন ডিবিসি ইলেকশন এক্সপ্রেস লাইভে যোগ দিয়ে এসব কথা বলেন মেয়র হাবিবুর।

পিরোজপুর পৌরসভা চত্ত্বর থেকে যোগ দিয়ে তিনি নানা প্রশ্নের জবাব দেন। এসময় একটি প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমি একটা প্রতিষ্ঠানে চৌদ্দ বছর দায়িত্বে আছি এবং আমি নৌকা প্রতীক নিয়ে শেষবারের মতো পিরোজপুর পৌরসভার মেয়র নির্বাচিত হয়েছি। জামায়াতকে আমি চ্যালেঞ্জ মনে করি না। কারণ আমি ১৯৭৫ সালের ১৫ই আগস্টের পর থেকে রাজনৈতিক মাঠে আছি। অতীতেও ছিলাম, এখনও আছি। জামায়াত এইখানে কখনও কোন ফ্যাক্টর হয় নাই। কিন্তু জামায়াতকে ফ্যাক্টর করেছে যারা, যারা জামায়াতকে পুনর্বাসিত করছে, তারা জামায়াতকে ফ্যাক্টর মনে করে।

দলীয় কোন্দলের ব্যাপারে তিনি বলেন, আমাদের দলীয় কোন কোন্দল নাই। তবে দলের বেশিরভাগ নেতাকর্মী আমার সাথে আছে এবং আমাকে তারা সমর্থন করে, আমার কর্মকান্ড সমর্থন করে। কারণ আমাকে সমর্থন করলে তাদের কারো কোন কথা শুনতে হয় না, কোন দুর্নাম শুনতে হয় না। তাদের সাথে নিয়ে আমি দীর্ঘদিন ধরে দলের হয়ে কাজ করছি। এখনও কাজ করে যাচ্ছি। প্রত্যেকটা ইউনিয়নে ইউনিয়নে, প্রত্যেকটা থানায় থানায় আমি দলের পক্ষে জননেত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়নের বার্তা এবং জননেত্রী শেখ হাসিনার বার্তা আমি ঘরে ঘরে পৌছে দেওয়ার চেষ্টা করতেছি।

print