উইন্ডসরে ব্রিটিশ রাজপুত্র প্রিন্স হ্যারি ও সাবেক অভিনেত্রী মেগান মার্কেলের বিয়ে বিশ্বের লাখো মানুষ প্রত্যক্ষ করবে।
লন্ডনের পশ্চিমাঞ্চলের উইন্ডসরের আরো প্রায় শত শত মানুষ বিয়ের অনুষ্ঠানটি ভালভাবে দেখার জন্য রাস্তায় রাত কাটিয়েছে।
শনিবার দুপুরে উইন্ডসর ক্যাসেলের সেন্ট জর্জেস চ্যাপেলে তাদের বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন হবে। এরপর স্থানীয় সময় দুপুর ১টার দিকে তারা একটি ছাদ খোলা গাড়িতে চড়ে শহর প্রদক্ষিণ করবেন। খবর বার্তা সংস্থা এএফপি’র।
বিয়ের শপথে, মার্কেল তার স্বামীর ‘কথা মেনে চলার’ অঙ্গীকার করবেন না।
প্রিন্স চার্লস মার্কেলের সঙ্গে গির্জায় প্রবেশ করবেন। মার্কেলের বাবা অসুস্থ থাকায় বিয়েতে অংশ নিতে পারছেন না।
বিয়ের প্রাক্কালে প্রিন্স হ্যারি (৩৩) উইন্ডসরে উপস্থিত জনতার উদ্দেশ্যে তার অনুভূতি ব্যক্তি করেন।
তিনি ‘স্বাচ্ছন্দ্য’ বোধ করছেন বলে জানান। মার্কেল (৩৬) বলেন, তার ‘দারুণ’ লাগছে।
এই বিয়েতে মার্কেলের সৎভাই থমাস মার্কেল জুনিয়র ও তার সাবেক স্ত্রী ট্র্যাসি ডুলেই ও ছেলে টেইলারকে আমন্ত্রণ জানানো হয়নি। তারা ব্রিটেটের বিভিন্ন গণমাধ্যমে এ ব্যাপারে সাক্ষাতকার দিয়ে বেড়াচ্ছেন।
২০১৬ সালে হ্যারি ও মার্কেলের পরিচয় হয়। তখন মার্কেলের বয়স ছিল ৩৪। ২০১৩ সালে প্রথম স্বামীর সঙ্গে মার্কেলের বিবাহ-বিচ্ছেদ ঘটে।

print