স্টাফ রিপোর্টার : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ভারতের কাজী নজরুল বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃক সম্মান সূচক ডক্টর অব লিটারেচার উপাধিতে ভূষিত হওয়ায় আনন্দ মিছিল করেছে পিরোজপুর জেলা ছাত্রলীগ। পিরোজপুর জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি জাহিদুল ইসলাম টিটুর নেতৃত্বে সোমবার সন্ধ্যায় পিরোজপুর জেলা আওয়ামীলীগের কার্যালয় থেকে মিছিলটি বের হয়। শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিন করে আবার জেলা আওয়ামীলীগের কার্যালয় গিয়ে শেষ হয়।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মোঃ ফয়সাল মাহবুব শুভ, ঢাকা মহনগর ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি এইচ এম মাসুম, পিরোজপুর জেলা ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম সাধারন সম্পাদক মোঃ শওকত খান, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম সাধারন সম্পাদক বারী তালুকদার জিয়ন, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম সাংগঠনিক সম্পাদক সুমন সাহা , জেলা ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম সাংগঠনিক সম্পাদক রাসেল হোসেন, পিরোজপুর পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি আসিফ ইকবাল, হোসেন, পিরোজপুর পৌর ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক মোমেন মোরশেদ শুভ্র, পিরোজপুর জেলা ছাত্রলীগের গ্রন্থনা ও প্রকাশনা সম্পাদক মোঃ আমিনুল ইসলাম, ইন্দুরকানী উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক রিয়াজুল ইসলাম লিটন, সরকারি সোহরাওয়ার্দী কলেজ ছাত্রলীগের সহ সভাপতি এইচ এম মামুন, আফতাব উদ্দিন কলেজ ছাত্রলীগ সভাপতি মোঃ ওলি, আফতাব উদ্দিন কলেজ ছাত্রলীগ সাধারন সম্পাদক মোঃ ছাব্বির হোসেন প্রমুখ । এছাড়াও এসময় জেলা, পৌর ও বিভিন্ন উপজেলা ছাত্রলীগের শতাধিক নেতা-কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন ।
আনন্দ মিছিল শেষে জেলা আওয়ামীলীগের কার্যালয়ে এক সভায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ভারতের কাজী নজরুল বিশ্ববিদ্যালয় সম্মান সূচক ডক্টর অব লিটারেচার বা ডি. লিট ডিগ্রি দেয়ায় কাজী নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতি ধন্যবাদ জানিয়ে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি জাহিদুল ইসলাম টিটু বলেন, প্রধানমন্ত্রীর এ উপধী বিশ্ব দরবারে বাংলাদেশের ভাবমূতি উজ্জ্বল করেছে । এসময় তিনি চলমান মাদক বিরোধী অভিযানকে স্বাগত জানিয়ে বলেন, হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালী জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমানের যোগ্য উত্তসরী। মাদকের কড়াল গ্রাস থেকে দেশকে রক্ষায় তিনি সময় উপযোগী নির্দেশ দিয়েছেন । এসময় প্রধানমন্ত্রীর সুস্বাস্থ্য কামনা করে দোয়া কামনা করা হয় । আলোচনা শেষে সকল নেতাকর্মীর মাঝে মিষ্টি বিতরণ করা হয়। উল্লেখ্য, ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর আমন্ত্রণে দু’দিনের সরকারি সফরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শনিবার সকালে বাংলাদেশের ভিভিআইপি ফ্লাইটে কলকাতার নেতাজী সুবাস চন্দ্র বসু আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছান। এরপর হেলিকপ্টার যোগে কলকাতা থেকে প্রায় ১৮০ কিলোমিটার উত্তরে বীরভূম জেলার বোলপুর শান্তিনিকেতনের বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাবর্তন অনুষ্ঠানে যোগ দেন। উক্ত অনুষ্ঠানে শোষণমুক্ত ও বৈষম্যহীন সমাজ গঠনে এবং গণতন্ত্র, নারীর ক্ষমতায়ন, দারিদ্র্য দূরীকরণ এবং আর্থ সামাজিক উন্নয়নের মাধ্যমে সাধারণ মানুষের জীবনমান উন্নয়নে অসাধারণ ভূমিকা রাখায় তার স্বীকৃতি হিসেবে শেখ হাসিনাকে ডি-লিট উপাধি দেয়া হয়।

print