মঠবাড়িয়া প্রতিনিধি : মঠবাড়িয়ার চাঞ্চল্যকর উপাধ্যক্ষ হত্যা মামলার এজাহার ভুক্ত পলাতক আসামী মিজানুর রহমান মাতুব্বর (৩২) কে সোমাবর রাতে চট্টগ্রামের সীতাকুন্ড থেকে মঠবাড়িয়া থানা পুলিশ গ্রেফতার করেছে। হত্যাকান্ডের এক বছর সাত মাস পর চট্টগ্রামের সীতাকুন্ড থানা পুলিশের সহায়তায় দুর্গম পাহাড়ী এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। অভিযানে নেতৃত্ব দেন মঠবাড়িয়া থানা পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মাজহারুল আমিন (বিপিএম)। গ্রেফতারকৃত মিজান উপজেলার বেতমোর গ্রামের সিদ্দিক মাতুব্বরের পুত্র। থানা সুত্রে জানাযায়, বেতমোর সিনিয়র মাদ্রাসার উপাধ্যক্ষ মাওলানা ফরিদ উদ্দিনের সাথে একই এলাকার আপন শ্যালক হাবিব গংদের সাথে জমা-জমি নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল। ওই বিরোধের জের ধরে ২০১৭ সালের ৯ জানুয়ারী রাতে শ্যালক হাবিব ও তার ভাড়া করা দলবলসহ মাওলানা ফরিদ উদ্দিনকে কুপিয়ে গুরুতর জখম করে। তিন দিন ঢাকার একটি ক্লিনিকে চিকিৎসাধীনঅবস্থায় ১১ জানুয়ারী মাওলানা ফরিদ উদ্দিন মারা যায়। এ ঘটনায় নিহতের পুত্র শহীদুল ইসলাম বাদী হয়ে আপন মামা হাবিব, মামাতো ভাই নাসিরসহ ৯ জন নামীয় ও আরও ৬/৭ জনকে অজ্ঞাত আসামী করে ওই দিন মঠবাড়িয়া থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করে।
মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা মঠবাড়িয়া থানা পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মাজহারুল আমিন (বিপিএম) জানান, গ্রেফতারকৃত মিজানকে মঙ্গলবার দুপুরে মঠবাড়িয়া সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে হাজির করলে ১৬৪ ধারায় এই হত্যার ঘটনায় জড়িত থাকার স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী দেন। তিনি আরও জানান, ওই মামলার প্রধান আসামী নাসির উদ্দিন, হাবিবুর রহমান ও ইয়াকুব আদালতের জামিনে থাকলেও বাকীরা পলাতক রয়েছে।

print