মঠবাড়িয়া প্রতিনিধি : পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় শ্যালিকাকে ধর্ষণের অভিযোগে দুলাভাই দিপক হাওলাদারকে (৩০) গ্রেফতার করেছে থানা পুলিশ। এ ঘটনায় ধর্ষণের শিকার ওই কিশোরী বাদী হয়ে বৃহস্পতিবার রাতে মামলা দায়ের করলে পুলিশ রাতেই নিজ বাড়ি থেকে দিপককে গ্রেফতার করে। এক সন্তানের জনক লম্পট দিপক পৌর শহরের পশ্চিম কলেজ পাড়া এলাকার দীনবন্ধু হাওলাদারের ছেলে।
ওই কিশোরীর বরাত দিয়ে মঠবাড়িয়া থানার এসআই নূর আমিন জানান, বিয়ের পর থেকে প্রায়ই দিপক শ্যালিকাকে উত্যক্ত করে আসছিল। গত ৭ মাস পূর্বে শ্যালিকাকে বিয়ে দিয়ে দেয়া হয়। এতে দুলাভাই ক্ষিপ্ত হয়ে গত ২২ এপ্রিল বাড়িতে কেউ না থাকার সুযোগে ভয়ভীতি দেখিয়ে জোর পূর্বক শ্যালিকাকে ধর্ষণ করে। উক্ত ঘটনা প্রকাশ করলে প্রানে শেষ করে ফেলার ভয়ভীতি ও বড় বোনকে ডিভোর্স দেয়ার হুমকি দেয়। গত জুন মাসে দিপক একটি কাগজে জোর পূর্বক মেয়েটির স্বাক্ষর নিয়ে বলে এখন থেকে তুই আমার বউ। এরপর বিভিন্ন স্থানে নিয়ে দিপক শ্যালিকাকে একাধিকবার ধর্ষণ করে। অবশেষে মেয়েটি বিষয়টি তার পরিবারকে জানায়।
মঠবাড়িয়া থানার অফিসার ইনচার্জ গোলাম ছরোয়ার জানান, মেয়েটির ডাক্তারি পরীক্ষা সিভিল সার্জন কার্যালয়ে সম্পন্ন হয়েছে। গ্রেফতারকৃত দিপক হাওলাদারকে শুক্রবার আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।

print