স্টাফ রিপোর্টার : বঙ্গবন্ধুর ঘনিষ্ঠ সহচর ঐতিহাসিক আগরতলা ষড়যন্ত্র মামলার ৮নং আসামী, মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক, ৯নং সাব সেক্টর কমান্ডের কমান্ডার এবং পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা কর্পোরাল (অব.) এম এ সামাদ রোববার রাতে ঢাকা জাতীয় হৃদরোগ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইন্তেকাল করেন (ইন্নালিল্লাহি…… রাজিউন)। মৃত্যু কালে তার বয়স হয়েছিল ৯৫ বছর।দীর্ঘ দিন ধরে তিনি বার্ধক্য ও হৃদরোগজনিত রোগে আক্রান্ত ছিলেন। তিনি এক ছেলে ও চার মেয়ে সহ অসংখ্য গুনাগ্রহী রেখে গেছেন। রোববার রাতে ঢাকা গ্রীনরোড স্টাফ কোয়ার্টার জামে মসজিদে প্রথম জানাযা, সোমবার আসর নামাজ বাদ মঠবাড়িয়া কেন্দ্রীয় ঈদগাঁয়ে দ্বিতীয় জানাযা এবং উপজেলার দক্ষিণ মিঠাখালী নিজ গ্রামের বাড়িতে তৃতীয় জানাযা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে তার লাশ দাফন করা হয়।
এদিকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আগরতলা ষড়যন্ত্র মামলার আসামী এবং পিরোজপুরের মঠবাড়ীয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা কর্পোরাল (অব.) এম এ সামাদের মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন।
এক শোকবার্তায় শেখ হাসিনা দেশের স্বাধীনতা সংগ্রাম ও মহান মুক্তিযুদ্ধে এই বীর যোদ্ধার অবদানের কথা গভীর কৃতজ্ঞতার সঙ্গে স্মরণ করেন।
প্রধানমন্ত্রী মরহুমের আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন এবং তার শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি আন্তরিক সমবেদনা জানান।
এছাড়াও বীর মুক্তিযোদ্ধা কর্পোরাল (অব.) এম এ সামাদের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন পিরোজপুর জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি ও পৌর মেয়র আলহাজ্ব মো: হাবিবুর রহমান মালেক, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কামান্ডার গৌতম চৌধুরী, দৈনিক গ্রামের সমাজের সম্পাদক ও প্রকাশক আলহাজ্ব মসিউর রহমান মহারাজ সহ জেলা আওয়ামীলীগ ও উপজেলা আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দ।

print