পিরোজপুর জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি ও পৌরসভার মেয়র আলহাজ্ব মো: হাবিবুর রহমান মালেক এর বিরুদ্ধে অপপ্রচারের অভিযোগ পাওয়া গেছে। একটি মহল তাদের রাজনৈতিক স্বার্থ হাসিলের উদ্দেশ্যেই নিজেদের মোটারসাইকলে বহরে সাাজনো হামরা চালিয়ে পরে নিজস্ব নিরাপত্তা কর্মী দিয়ে শহরের দু’দফা গুলি ছুড়েছেন বলে প্রত্যক্ষদর্শী আওয়ামীলীগের কয়েকজন নেতা।
প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ সূত্রে জানাযায়, পিরোজপুরের শেখ এ্যানী এ্যানি রহমানের সমর্থকরা মোটর সাইকেল বহর নিয়ে শহরের অবকাশ মোড় হয়ে তার বাসভবনের সমনে অসছিলো। এ সময় হটাৎ করে রহস্যজনক ভাবে কয়েক রাউন্ড ফাঁকা গুলিবর্ষনের ঘটনা ঘটে এবং এর আগে টাউন ক্লাবের সামনে একই রকম ঘটনার ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে আইনশৃংঙ্খলা বহিনীর সদস্যরা ঘটনা স্থলে পৌছায়। এ দিকে শহরে হটাৎ করে গুলির্ষনের ঘটনাকে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যমূলক ও রহস্যজনক বলে অভিমত ব্যক্ত করেছেন কেউ কেউ। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ব্যক্তি জানান, নিজেরা নিজেরা শহরে গোলগুলি করে মিথ্যা নাটক সাজিয়ে পিরোজপুরের পৌর মেয়র মালেকের ভাবমূর্তি নষ্টকরার জন্য এ ধরনের ঘটনা ঘটিয়েছে এবং আবার তারা মিছিল পথ সভাও করেছে।
অপর এক প্রত্যক্ষদর্শী জানিয়েছেন, মোটরসাইকেল বহর নিয়ে যাওয়ার সময় একটি রিক্সার সাথে ধাক্কা লেগে ঐ বহরের মধ্যে থেকে এক মোটরসাইকেল রাস্তায় পড়ে যায়। সেই ঘটনাকে রাজনৈতিক হাতিয়ার হিসেবে করতেই এই সব গুলি, মিছিল ও মিটিং করে প্রকারান্তে পরিবেশ ভারী করে তোলা হয়েছে।
অপর দিকে আরেক প্রত্যক্ষদর্শী জানান, নিজের ক্ষমতার জানান দিতেই এ্যানি রহমানের নিজস্ব নিরাপত্তা কর্মীরা এই গুলি চালিছে । এতে করে শহরের সাধারণ মানুষের মাঝে আতঙ্ক সৃষ্টি হয় এবং শহরে থমথমে পরিবেশ তৈরি হয়। পিরোজপুর সদর থানার অফিসার ইনচার্জ এস এম জিয়াউল হক জানান, এ্যানি রহমানের সাথে থাকা নিজস্ব নিরাপত্তা কর্মীরাই শহরে দুই দফা গুলি ছুড়েঁছে। শহরে নিরাপত্তা বৃদ্ধি করা হয়েছে এবং এ বিষয়ে তদন্ত করা হচ্ছে।

print