স্টাফ রিপোর্টার : আজ বুধবার আন্তর্জাতিক দারিদ্র্য বিমোচন দিবস। বাংলাদেশ থেকে দারিদ্র নিরসনে সরকারের পাশাপাশি বেসরকারী উন্নয়ন সংস্থা ‘ব্র্যাক’ নিরলসভাবে কাজ করে চলেছে। এক্ষেত্রে ব্র্যাকের বহুমুখী কর্মকান্ডের মধ্যে ‘অতি দারিদ্র কর্মসূচি’ দুই বছর মেয়াদী একটি বিশেষ উদ্যোগ, যা ইতিমধ্যে চরম দারিদ্র বিমোচনের একটি কার্যকর মডেল হিসেবে বিশ্বব্যাপী স্বীকৃতি লাভ করেছে।
কর্মসূচির আওতায় ব্র্যাক ২০০২ সাল থেকে ২০১৭ সাল পর্যন্ত দেশের ৪৭টি দারিদ্র পীড়িত জেলার ১৮ লাখের বেশি নারী এবং তাদের পরিবারকে চরম দারিদ্র থেকে বেরিয়ে আসতে সহায়তা করেছে। ২০১৬ সালে ৭৯ হাজার ৪৮০টি চরম দরিদ্র পরিবারকে অতি দারিদ্র কর্মসূচির সহায়তার আওতায় আনা হয়েছে। ২০২০ সালের মধ্যে আরও সাড়ে ৪ লাখ পরিবারকে সহায়তা করার লক্ষ্যমাত্রা সামনে রেখে ২০১৮ সালে বাংলাদেশের ৪৫টি জেলার ২৩৮টি উপজেলায় মোট ১ লাখ ১৪ হাজার ৫০০টি পরিবারের জন্য অতি দারিদ্র কর্মসূচির কার্যক্রম পরিচালনা করা হচ্ছে। এর মধ্যে পিরোজপুর জেলা অন্যতম। ২০১৮ সালে এই জেলার ৬টি উপজেলার (কাউখালি ব্যতিত) ৩ হাজার ৫০টি পরিবারকে অতি দারিদ্র কর্মসূচির সহায়তার আওতায় আনা হয়েছে।
ব্র্যাকের অতি দরিদ্র কর্মসূচিতে অংশগ্রহণকারী পরিবারগুলোর ৯০ ভাগ ‘অতি দরিদ্র অবস্থা’ থেকে উত্তরণ ঘটে। ব্র্যাকের কর্মসূচিতে অনুপ্রাণিত হয়ে বিশ্বব্যাংকের অঙ্গ প্রতিষ্ঠান সি-গ্যাপ ৮টি দেশে এই মডেলকে পাইলট প্রকল্প হিসেবে গ্রহণ করে এবং সাফল্য পায়। ক্রমে এই মডেলটি বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়ে। এই কর্মসূচির একটি বিশেষ বৈশিষ্ট্য হল, আর্থ-সামাজিক বাস্তবতা এবং অন্যান্য প্রেক্ষাপট অনুযায়ী মূল কাঠামো ঠিক রেখে কর্মসূচির আওতাভুক্ত কার্যক্রমগুলো কী হবে তা নির্ধারণ করা যায়। ফলে বর্তমানে ৪৩টি দেশের সরকার ও বেসরকারি সংস্থা নিজ নিজ দেশে এই কর্মসূচি পরিচালনা করে অতি দরিদ্র জনগোষ্ঠীর উন্নয়নে ভূমিকা রাখছে।

print