জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতা ও গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেন আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রার্থী হচ্ছেন না বলে জানিয়েছেন দলটির নির্বাহী সভাপতি সুব্রত চৌধুরী। বুধবার দুপুরে ঢাকা বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয়ে ঢাকা-৬ আসনে নিজের মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার পর তিনি এ কথা জানান। সুব্রত চৌধুরী বলেন, এবারের নির্বাচনে ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতা ও গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেন প্রার্থী হচ্ছেন না। এ ব্যাপরে বিভ্রান্তির কোনো অবকাশ নেই।

তিনি বলেন, আমাদের সভাপতি জাতীয় ঐক্যফন্টের নেতৃত্ব দিচ্ছেন। ফ্রন্ট তিনি পরিচালনা করছে। তিনি আগেও বলেছিলেন ক্ষমতায় যাওয়ার জন্য তিনি ঐক্য করেন নাই। গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনার জন্য জাতির স্বার্থে তিনি এই ঐক্যে শরিক হয়েছেন। গণফোরামের এই নেতা বলেন, আমরা দলের পক্ষ থেকে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছি। তবে জোটের বিষয়টা চূড়ান্ত হয়নি। কাল থেকে আমাদের চূড়ান্ত করার কাজ শুরু হবে। জোটের পক্ষ থেকে পরে আমাদের মনোনয়ন চূড়ান্ত হবে।

তিনি বলেন, নির্বাচন নিয়ে আমরা দিন দিন হতাশার দিকে যাচ্ছি। ইসির আচরণে মনে হচ্ছে, তারা প্রশ্নবিদ্ধ নির্বাচন করতে যাচ্ছে। তারা ৫ জানুয়ারির মতো আরেকটি নির্বাচনের মানসিক প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছিল। আমরা ঐক্যফ্রন্ট গঠনের মাধ্যমে নির্বাচনী জোয়ার তৈরি করেছি। দেশে নির্বাচনের সুষ্ঠু পরিবেশ তৈরি হয়েছে কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, দেশে নির্বাচনের সুষ্ঠু পরিবেশ তৈরি হয়েছে বলে এখনও তারা মনে করেন না। তবে নির্বাচন থেকে তারা সরে দাঁড়াবেন না।

ড. কামাল নিজে নির্বাচনে অংশগ্রহণ না করলেও মঙ্গলবার আসনবণ্টন নিয়ে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের সঙ্গে বৈঠকের পর দলের জন্য বিএনপির কাছে দাবি করেন ৩০ থেকে ৪০টি আসন। তিনি বলেন, সময়স্বল্পতার কারণে এখন জোটগতভাবে মনোনয়ন দেয়া হচ্ছে না।
আপাতত দলীয়ভাবে মনোনয়ন দেয়া হচ্ছে। তবে আসন নিয়ে ইতিবাচক আলোচনা হয়েছে। তিনি বলেন, ‘আমরা গণফোরাম ৩০-৪০টি আসন চেয়েছি। তার মধ্যে ঢাকাতে দুটি আসন থাকতে হবে।’ তবে কোন দুটি আসন তা নিশ্চিত করেননি ড. কামাল হোসেন। উল্লেখ্য, গত ১৩ অক্টোবর গণফোরামের সভাপতি ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু হয়।
print