স্টাফ রিপোর্টার : পিরোজপুরে সৌরশক্তি ও পানি সাশ্রয়ী আধুনিক প্রযুক্তি সম্প্রসারণের মাধ্যমে ফসল উৎপাদন বৃদ্ধি পাইলট প্রকল্পের কাজ এগিয়ে চলেছে। পিরোজপুর জেলার সদর উপজেলাসহ ৪১টি জেলার ১০০টি উপজেলাকে এ প্রকল্পে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে।
চলতি ২০১৮-২০১৯ অর্থবছরে শুরু হওয়া এ পাইলট প্রকল্পের মেয়াদ নির্ধারণ করা হয়েছে ২০২১-২০২২ অর্থবছর পর্যন্ত। কৃষি মন্ত্রণালয়ের জেলা ও উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তাগণ এই প্রকল্পের কৃষকদের মাঝে সচেতনতা সৃষ্টি এবং ফসলের উৎপাদন বৃদ্ধির বিভিন্ন বিষয় নিয়ে প্রশিক্ষণ দান করবেন।
পিরোজপুরের কৃষি প্রকৌশলী দিপংকর বালা জানান, সেচ কাজে সৌরশক্তি ব্যবহার করে প্রায় শতভাগ জ্বালানি তেল বা বিদ্যুৎ সাশ্রয়, সেচ কাজে ভু-উপরিস্থ পানি ব্যবহার করে প্রাকৃতিক ভারসাম্য রক্ষা, উন্নত অন্যান্য সেচ পদ্ধতিসহ বিভিন্ন বিষয় ইতোমধ্যেই ২৫ জন কৃষককে প্রশিক্ষণ দেয়া হয়েছে।
জেলা কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, এ পাইলট প্রকল্পের অধীনে সোলার সেচ প্রর্দশনী, ড্রিপ পদ্ধতিতে সেচ প্রদর্শনী, বারিড পাইপ সেচ প্রদর্শনী এবং পাতকুয়া খনন করে ব্যবহারসহ মোট ৪টি করে প্রদর্শনী ক্ষেত স্থাপন করা হবে। পাতকুয়ায় বৃষ্টির পানি সংরক্ষণেরও ব্যবস্থা থাকবে। পিরোজপুর সদর উপজেলার ২৬ হাজার ৬শ’ কৃষকের মাঝে সচেতনতা সৃষ্টি করা গেলে সৌরশক্তির ব্যবহার এবং ভু উপরিস্থ পানি ব্যবহারে পরিবেশের ভারসাম্য বজায় রাখা সম্ভব হবে এবং কম খরচে অধিক ফসল উৎপাদিত হলে কৃষকরা লাভবান হবে।

print